হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই ? আশা‌করি সবাই ভাল আছেন আজ আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে ডেঙ্গু মোকাবেলা করবেন। সবাইকে বাংলা নিউজ ডিজিটালের পক্ষ থেকে স্বাগতম। আজকে আমরা জানব ডেঙ্গু জ্বর সম্পর্কে।

সম্প্রতি সময়ে বাংলাদেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশে গত ২৪ ঘন্টায় আরো ২৯৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে। এখন আমরা জানব কিভাবে ডেঙ্গু প্রতিরোধে করবেন এবং ডেঙ্গু থেকে বাঁচার উপায়।

ডেঙ্গু কি :

আমাদের চারপাশে তিন ধরনের মশা থাকে । যথা: আ্যানিফিলিস, এডিস , কিউফ্লিক্স। ডেঙ্গু হলো একপ্রকার জ্বর যা স্ত্রী এডিস মশার দ্বারা সংক্রমিত হয়।

ডেঙ্গু জ্বর কিভাবে ছড়ায় :

ডেঙ্গু কোনো ছোঁয়াছে রোগ নয়। ডেঙ্গু স্ত্রী এডিস মশার কারণে এক দেহ হতে অন্য দেহে ছড়াই। যদি ডেঙ্গুতে আক্রান্ত কোনো ব্যক্তিকে কামড়ানোর পর এ মশা যদি কোনো সুস্হ ব্যক্তিকে কামড়ায় তাহলে তার ডে্গু হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

ডেঙ্গুর প্রকারভেদ:

ডেঙ্গু সাধারণত ৪ প্রকার । যথা:

১. DENV-1

২. DENV-2

৩. DENV-3

৪.DENV-4

ডেঙ্গু রোগের লক্ষণ:

১. জ্বর সাধারণত ১০৫ ডিগ্রি ফারেনহাইটের কাছাকাছি থাকে।

২. পেটে ব্যথা হতে পারে।

৩.চোখের নিচে ব্যথা হতে পারে।

৪. সারা শরীরে লালচে দাগ পড়ে যায় ।

৫. সারাক্ষণ বমি বমি ভাব হয় । অনেক সময় তীর্বমাত্রায় বমি হয়।

৬. এ রোগের কারণে অনেক সময় বুকে ও পেটে পানি জমতে পারে এবং পানি জমা থেকে জন্ডিস দেখা দিতে পারে।

৭. রক্তচাপ হঠাৎ কমতে থাকা এবং নারীর স্পন্দন কমতে থাকে ।

৮. অতিরিক্ত ক্লান্ত বা দূর্বল হতে পারে।

৯. প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যেতে পারে।

১০. রোগী হঠাৎ করে জ্ঞান হারিয়ে ফেলতে পারে এমনকি মৃত্যুও হতে পারে।

এখন আমরা জানব ডেঙ্গু হলে আমাদের করণীয় কি :

১. পানি পান: আপনাকে কয়েকদিন ২-৩ লিটার করে পানি পান করতে হবে। প্রয়োজন হলে পানির সাথে স্যালাইন মিশিয়ে নিতে পারেন।

২.পূর্ণ বিশ্রাম : ডেঙ্গু হলে আমাদের শরীর অনেক দূর্বল হয়ে যায়। তাই আমাদের এ সময়ে পূর্ণ বিশ্রামে থাকতে হবে।

৩. অন্য জ্বরের মতো প্যারাসিটামল ডেঙ্গু জ্বর কমাতে সহায়তা করে। তাই এই সময় প্রারাসিটামল খাওয়া যেতে পারে কিন্তু এ সময় অন্তত কোনো ওষুধ খাওয়া ঠিক না চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া। অন্য ওষুধ নিলে এতে বিপরীত হতে পারে।

৪. ডেঙ্গু হলে প্রচুর পরিমাণে মাল্টা লেবু খেতে হবে । কারণ মাল্টা লেবুতে থাকা ভিটামিন সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা ডেঙ্গু জ্বর কমাতে সহায়তা করে।

৫. হলুদ : ডেঙ্গু জ্বর হলে হলুদ কাজে আসতে পারে। তাই প্রতিদিন এক গ্লাস দুধের সাথে কিছুটা হলুদ মিশিয়ে খেতে পারেন এতে আপনি দ্রুত সুস্হ হয়ে উঠবেন।

ডেঙ্গু প্রতিরোধে করণীয় :

আমরা যদি কিছু নিয়ম মেনে চলি তাহলে আমরা সহজেই ডেঙ্গু থেকে মুক্ত থাকতে পারি। নিচে আমরা কিভাবে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে পারি এ সম্পর্কে লেখা হলো:

১.এডিস মশার কামড়ে যেহেতু ডেঙ্গু হয় । তাই মশার কামড় থেকে সতর্ক থাকতে হবে। আর এবিসি মশা যেহেতু সকালে এবং সন্ধ্যায় বেশি কামড়ায় তাই এ সময় ঘুমানোর আগে মশারি ব্যবহার করতে হবে।

২.বাড়ির আশে- পাশের বন-জঙ্গল পরিষ্কার করতে হবে।কারণ মশা বন-জঙ্গলে বেশি থাকে।

৩. বাড়ির অপরিক্ত টব, ভাঙা মাটির টপ থাকলে তা ফেলে দিতে হবে যেন টবে পানি জমতে না পারে।

৪.নিয়মিত শাক-সবজি বেশি করে খান । কারণ এতে আপনার দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

৫. সর্বোপরি আতঙ্কিত না হয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

৬. ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার খান এবং শারীরিক পরিশ্রম করুন অলস জীবন-যাপন না করে।

তথ্য সূত্র: সংগৃহীত ও ডাঃ জিহাদুল ইসলাম

জেনে নিন সবুজ আপেল খাওয়ার উপকারিতা বিস্তারিত জানতে লিংকে ক্লিক করুন

সবুজ আপেল খাওয়ার উপকারিতা: