হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই। আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজকে আমরা আপনাদের মাঝে শেয়ার করতে চলেছি এমন একটি টপিক যা আপনাদের অনেক সহায়তা করবে।আপনারা নিশ্চয়ই জানেন বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক । এখন চাইলে আপনি ও ইনকাম করতে পারবেন।

ফেসবুক শুধুমাত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সীমাবদ্ধ নয়। ব্যবহারকারীদের নানাভাবে আয়ের সুযোগ করে দিচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্মটি। সম্প্রতি ফেসবুক তাদের কর্পোরেট নাম পরিবর্তন করে মেটা হয়েছে।

সম্প্রতি ফেসবুক গ্রুপ মনিটাইজেশনের ক্ষেত্রে নতুন কয়েকটি বৈশিষ্ট্য নিয়ে আসছে মেটা। এর ফলে আরও বেশি অর্থ আয় করা যাবে গ্রুপ থেকে, এমনটাই বলছে মেটা।

তবে এবার ফেসবুক গ্রুপ থেকে অর্থ আয়ের নতুন অন্যান্য উপায়গুলো পরীক্ষা করে দেখছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম প্ল্যাটফর্মটি। সেটা হতে পারে বিশেষ কনটেন্টের জন্য গ্রুপের সদস্যদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট হারে ফি গ্রহণ কিংবা গ্রুপের ভেতরে আলাদা গ্রুপ (সাব গ্রুপ) খুলে সদস্যদের আলোচনার সুযোগ করে দেয়া ইত্যাদি।

যদিও আগে থেকেই বিভিন্ন পণ্য বিক্রি, সাবস্ক্রিপশন ফি নির্ধারণ, কোচিং অথবা মেন্টরিং, স্পন্সরশিপ অ্যাডভার্টাইজিং ইত্যাদির মাধ্যমে গ্রুপ থেকে আয় করার সুযোগ পেতো অ্যাডমিনরা।তবে ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠান মেটা সম্প্রতি জানায়, সাবস্ক্রিপশন-নির্ভর ব্যবসায়িক মডেলের (অর্থের বিনিময়ে বিশেষ সুবিধা প্রদান) অংশ হিসেবে পরীক্ষামূলকভাবে সুবিধাগুলো চালু করা হবে।

এখানে অ্যাডমিনরা গ্রুপে ই-কমার্সের মাধ্যমে পণ্য বিক্রির সুবিধা পাবেন। আবার সদস্যদের কাছে অর্থ সংগ্রহের মাধ্যমে তহবিল গঠনের ব্যবস্থাও থাকবে। এতে গ্রুপ পরিচালনার ব্যয় নির্বাহ করা যাবে।

ফেসবুক লাইভে প্রচারিত ‘কমিউনিটিজ সামিট’-এ ঘোষণাগুলো দেওয়া হয়। সেখানে বলা হয়, সাব গ্রুপে অর্থ পরিশোধ করে কিংবা বিনামূল্যে যোগ দেওয়ার সুবিধা দিতে পারবেন অ্যাডমিনরা। এতে গ্রুপের সদস্যরা ভিন্ন ভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করতে পারবেন।

ফেসবুক বলেছে, গ্রুপে দৃশ্যমান পরিবর্তন আনার সুযোগ পাবেন অ্যাডমিনরা। সদস্যরা ভালো পোস্টের জন্য ‘কমিউনিটি অ্যাওয়ার্ড’ দিতে পারবেন। এমনকি পেজ ও গ্রুপের সেরা সুবিধাগুলো এক করার ব্যাপারেও ইঙ্গিত এসেছে। তখন পেজ অ্যাডমিনরাও গ্রুপের মতো সুবিধা পাবেন। তবে সেটি এখনো পরীক্ষার প্রাথমিক পর্যায়ে আছে