ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তান ক্রিকেটের সর্বকালের সেরা দুই ক্রিকেটার কে, এ আলোচনায় ইমরান খান আর ওয়াসিম আকরামের নাম আসবে শুরুর দিকেই। প্রথমজন দেশকে প্রথম বারের মতো বিশ্বকাপের স্বাদ দিয়েছিলেন। পরেরজন তুলেছিলেন ফাইনালে, আরেকটা শিরোপার খুব কাছে।

ইমরান এখন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হলেও ওয়াসিম এখনো আছেন ক্রিকেটের সঙ্গেই। দু’জন একসময় ছিলেন সতীর্থ, তাই দেশের প্রধানমন্ত্রী হলেও ওয়াসিমের সঙ্গে ইমরানের সম্পর্কটা সেই সতীর্থতেই থেকে গেছে।

অস্ট্রেলিয়া-পাকিস্তান ম্যাচের আগে এক লাইভ অনুষ্ঠানে অতীতের স্মৃতিচারণই করলেন ওয়াসিম। অধিনায়ক ইমরানের ভাবভঙ্গি নকল করে হাস্যরস আর আলোচনার জন্মও দিলেন তিনি।

১৯৮৮ সালে তখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে আছে পাকিস্তান। সে সফরেরই এক মজাদার ঘটনার বিবরণ দেন ওয়াসিম। কিংবদন্তি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ওপেনিং জুটি গর্ডন গ্রিনিচ ও ডেসমন্ড হেইন্স সেই ম্যাচে পাকিস্তান বোলারদের বিরুদ্ধে মারকুটে ইনিংস খেলে দলকে জয় এনে দেন বলে জানান ওয়াসিম।

সে ম্যাচে উইন্ডিজের কিংবদন্তি দুই ওপেনার বেধড়ক মারই দিয়েছিলেন ইমরানকে, বর্তমান পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী সেদিন ছয় ওভারে হজম করেছিলেন ৪৫ রান। ম্যাচের পরের দিনও মাঠে গিয়ে স্কোরবোর্ডে পরিসংখ্যান ঝুলতে দেখেন তিনি। এরপরই সতীর্থকে তড়িঘড়ি করে ডেকে স্কোরবোর্ড থেকে সেই পরিসংখ্যান দ্রুত গিয়ে সরানোর নির্দেশ দেন তিনি।

সতীর্থের প্রতি ইমরানের হুকুমটা কেমন ছিল, সেটাই ওয়াসিম নকল করে দেখাচ্ছিলেন সবাইকে। টিভি শো ‘দ্য প্যাভিলিয়নে’ এই ঘটনার জন্ম দেন ওয়াসিম। শোতে সঞ্চালক আর ওয়াসিম ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ওয়াকার ইউনুস, মিসবাহ উল হক, ও ওয়াহাব রিয়াজ। সাবেক অধিনায়ককে এমনভাবে নকল করতে হেসেই খুন হয়ে যান উপস্থিত সবাই।

শুধু তাই নয়। ওয়াসিমের এই কাণ্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও বেশ আলোড়ন ফেলে দিয়েছে। টুইটার, ফেসবুকেও নেটিজেনদের হাসির খোরাক বনে গেছে সেটি।