ঘটনাস্থলে জানা যায়,

রেইন গাছের ১০০ হাত উপর থেকে আবিদ হোসেন (২৫) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রকে উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। স্থানীয়দের ধারণা, গভীর রাতে ওই শিক্ষার্থীকে কোনো জিন গাছের উপর বসিয়ে রেখেছে।খবর পেয়ে বেলা ১১টার দিকে খবর পেয়ে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার মদনপুরায় ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। সে বাউফলের উত্তর মদনপুরা হাফিজিয়া মাদ্রাসার ছাত্র।স্থানীয়রা জানায়, উত্তর মদনপুরা মল্লিকবাড়ি হাফিজিয়া মাদ্রাসার এই ছাত্র রাত তিনটা থেকে একটি রেইন গাছের প্রায় ১০০ হাত উপরে মগ ডালে বসে আছে। উক্ত ঘটনা পর্যবেক্ষণ করার জন্য উৎসুক জনতার ভিড় জমে।তারা আরও জানায়, ছেলেটিকে সম্ভবত জিনে পেয়েছে। তাই এত উপরে উঠে বসে আছে। জিনেরা এমনটা করে থাকে বলেও দাবি তাদের।বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মামুন জানায়, ঘটনা শুনে আমি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ ঘটনাস্থলে পাঠাই এবং ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে গাছের মগডল থেকে তাকে নামিয়ে আনে।

বাউফল থানার ফায়ার সার্ভিসের ফায়ার ফাইটার মো. মিজান সরদার বলেন, খবর পেয়ে আমাদের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যাই এবং তাকে অক্ষত অবস্থায় গাছের মগডাল থেকে উদ্ধার করি। তবে কী কারণে সে গাছের মগডালে উঠছে সে বিষয় আমরা কিছু বলতে পারি না। এলাকাবাসীর ধারণা, জিনে তাকে গাছের মগডালে উঠিয়েছে।আবিদের বাবা মো. হেলাল খান পেশায় একজন রিকশাচালক। তার বাড়ি বাউফল উপজেলার রামলক্ষণ গ্রামে। সে ওই মাদ্রাসায় হাফেজি পড়ুয়া শিক্ষার্থী।