ইতোমধ্যে শুরূ হয়ে গেছে বিভিন্ন অঞ্চলে শীতের আবহাওয়া।‌‌দেশে আগামী দুই থেকে চার দিন দিনের বেলা হালকা গরম ও রাতে হালকা শীতের অনুভূতি পাওয়া যাবে। সারা দেশে একযোগে তাপমাত্রা কমতে থাকবে ২৩ থেকে ২৫ নভেম্বরের মধ্যে। শীতের তীব্রতা বাড়তে পারে ডিসেম্বরের শুরুতে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে এসব কথা বলা হয়েছে। অধিদপ্তর বলছে, এবার অন্যান্য বছরের তুলনায় শীত বেশি পড়তে পারে।

অধিদপ্তর জানায়, বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপটি আবারও ভারতের চেন্নাই ও অন্ধ্র প্রদেশের উপকূলে উঠে গেছে। এবার আগের নিম্নচাপটির মতো বিস্তৃত মেঘ ছিল না। যে কারণে দক্ষিণ ভারতে হালকা বৃষ্টি হলেও মেঘের দল বাংলাদেশ পর্যন্ত পৌঁছাতে পারেনি। এতে গতকাল শুক্রবার রাজধানীর আকাশ পরিষ্কার হয়ে যায়।আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস প্রথম আলোকে বলেন, নিম্নচাপটি স্থল লঘুচাপে পরিণত হওয়ায় আপাতত মেঘ-বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। ফলে আকাশ মেঘমুক্ত থাকতে পারে।

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের কারণে সাইবেরিয়া থেকে আসা হিমেল হাওয়া দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়তে পারেনি বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। অবশ্য উত্তরাঞ্চলে প্রায় শীত নেমে গেছে।দেশে গতকাল সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, ১৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমেছিল।